১৯) আসুন জেনে নেই ভারতের কোন কোন অঙ্গরাজ্যে গরু জবাই করলে কিংবা কুরবানি করলে কি কি শাস্তি

১৯) আসুন জেনে নেই ভারতের কোন কোন অঙ্গরাজ্যে গরু জবাই করলে কিংবা কুরবানি করলে কি কি শাস্তি

আমাদের পার্শ্ববর্তী হিন্দু নিয়ন্ত্রিত দেশ ভারতের বহু প্রদেশে গরু জবাই নিষিদ্ধ। যদিও সেখানে মোট জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেকই হচ্ছে মুসলমান। তবে ৮টি প্রদেশ ব্যাতীত অন্যান্য প্রদেশগুলোতে গরু জবাইয়ে রয়েছে কঠোর শাস্তির বিধান।

আসুন জেনে নেই কোন কোন প্রদেশে জবাইয়ের জন্য মুসলমানদের কেমন শাস্তি দেয়া হয়-

(১) অন্ধ্রপ্রদেশ : ৬ মাসের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(২) আসাম : ৬ মাসের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(৩) বিহার : ৬ মাসের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(৪) দামান ও দিউ : ২ বছরের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(৫) দিল্লি : ৫ বছরের জেল ও ১০ হাজার রুপি জরিমানা।
(৬) গোয়া : ২ বছরের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(৭) গুজরাট : ৭ বছরের জেল ও ৫০ হাজার রুপি জরিমানা।
(৮) হরিয়ানা : গরু ও মহিষ কোনোটাই জবাই করা যাবে না, করলে ৫ বছর জেল ও ৫ হাজার রুপি জরিমানা।
(৯) হিমাচল : গরু ও মহিষ কোনোটাই করা যাবে না, করলে ২ বছর জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(১০) জম্মু কাশ্মীর : গরু ও মহিষ কোনোটাই করা যাবে না, করলে ১০ বছর জেল ও এবং জবাইকৃত পশুর মূল্যের ৫গুন জরিমানা।
(১১) কর্নাটক : ৬ মাসের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(১২) মধ্য প্রদেশ : ৩ বছরের জেল ও ৫ হাজার রুপি জরিমানা।
(১৩) উড়িষ্যা : ২ বছর জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(১৪) পুদুচেরি : ২ বছরের জেল ও১ হাজার রুপি জরিমানা।
(১৫) পাঞ্জাব : গরু ও মহিষ কোনোটাই জবাই করা যাবে না, করলে ২ বছরের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(১৬) রাজস্থান : গরু ও মহিষ কোনোটাই জবাই করা যাবে না, করলে ২ বছরের জেল ও ১০ হাজার রুপি জরিমানা।
(১৭) তামিলনাড়ু : ৩ বছরের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(১৮) তেলেঙ্গানা: ৬ মাসের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(১৯) উত্তরপ্রদেশ: ২ বছর জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(২০) পশ্চিমবঙ্গ: বৃদ্ধ ও প্রজননে অক্ষম গরু জবাই করা যাবে। তবে এর বাইরে করলে ৬ মাসের জেল ও ১ হাজার রুপি জরিমানা।
(২১) মহারাষ্ট্র: ৫ বছরের জেল ও জরিমানা।

উল্লেখ্য, বর্তমানে ভারতের মোট ২৯টি প্রদেশ। এরমধ্যে ২১টি প্রদেশেই গরু কুরবানি ও সারা বছর গরু-মহিষ জবাই নিষিদ্ধ।

সার্চ করুন

সর্বশেষ পোস্ট

এই সম্পর্কিত আরো পোস্ট সমূহ



১) সাবধান! গরুর গোশত খাওয়া নিয়ে ভীতি ছড়াচ্ছে ভারত নিয়ন্ত্রিত মিডিয়াগুলো

মুসলমানদের গরুর গোশত খাওয়ার প্রতি হিন্দুদের যারপরনাই বিদ্বেষ। গরু জবাই, গরুর গোশত রাখা ও খাওয়া এসবের প্রতি ভীতি ছড়ানো হিন্দুদের জাতিগত এজেন্ডা। এসব এজেন্ডা জোরপূর্বক

বিস্তারিত পড়ুন

২) পবিত্র কুরবানি নিয়ে কোন প্রকার ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবেনা

প্রতি বছর পবিত্র কুরবানির সময় শুরু হয় নানা ধরণের ষড়যন্ত্র। ইতিপূর্বে পবিত্র কুরবানির আগে গরুর মধ্যে ‘এ্যানথ্রাক্স’ ভাইরাসের নামে এক ধরণের ফোবিয়া (কুরবানির পশু ভীতি)

বিস্তারিত পড়ুন

৩) পবিত্র কুরবানি ‘ব্যবস্থাপনা’র নামে ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের চেষ্টা করলে দেশে গণবিস্ফোরণ ঘটতে পারে

বাংলাদেশে গরু জবাই নিয়ে বিশেষ করে পবিত্র কুরবানি ঈদের সময় ষড়যন্ত্র নতুন কোনো বিষয় না। ষড়যন্ত্র বিগত বছরগুলোতে পবিত্র কুরবানি নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি করতে কুচক্রী

বিস্তারিত পড়ুন

৪) যে পবিত্র কুরবানির উসীলায় চাঙ্গা হয়ে উঠে গোটা দেশের অর্থনিতি

এক কুরবানির ঈদের বরকতে চাঙ্গা হয়ে উঠে গোটা দেশের অর্থনিতি। হবে না কেন? এর সাথে জড়িত রয়েছে হাজার হাজার ব্যবসা আর হাজার হাজার টাকার লেনদেন।

বিস্তারিত পড়ুন