৫৮) জনদুর্ভোগ আর হাসপাতালের দোহাই গরুর হাট দূরে সরানোর ষড়যন্ত্র রুখে দিন।

৫৮) জনদুর্ভোগ আর হাসপাতালের দোহাই গরুর হাট দূরে সরানোর ষড়যন্ত্র রুখে দিন।

ইসলামবিদ্বেষী মিডিয়া প্রতিবছর কোরবানী পশুর হাট নিয়ে অপপ্রচার করে । তারা যুক্তি দেয় যে কোরবানী পশুর হাটের কারনে নাকি মানুষের দুর্ভোগ হয় আর হাসপাতালে নাকি রোগীদের কষ্ট হয়। কোন মানুষের দুর্ভোগ হয় আর কোন রোগীর কষ্ট হয় তা কিন্তু তারা প্রমান করতে পারেনা। কোরবানি তো মুসলমান উনাদের জন্য । তো সেই মুসলমান নিজেই যখন কোরবানি দেয়ার জন্য পশু কিনতে যেয়ে লোকসমাগম হয় তাহলে তা তার দুর্ভোগ হয় কি করে ?তা তো তার কাছে আনন্দের বিষয়! আর হাসপাতালে পথ রুদ্ধ করে হাট বসানো হয়েছে তার প্রমান কি এরা দেখাতে পারবে ? কোরাবানী পশুর হাট তো আর হাসপাতালের ভিতরে দেওয়া হচ্ছেনা !!!

অথচ যখন- ১. পহেলা বৈশাখে সারা বাংলাদেশের সবচেয়ে মুমূর্ষু রোগীদের পাঠানো স্থান ঢাকা মেডিকেল, পিজি হাসপাতালে ও বারডেমসহ গুরুত্বপূর্ণ হাসপাতালে আগত সবগুলো রাস্তাই ব্যারিকেড দিয়ে আটকানো থাকে, চর্তুদিকে থাকে হারাম বৈশাখপ্রেমী অজস্র মানুষের ভীড়, সেখানে অ্যাম্বুলেন্স চলা তো দূরের কথা, পিপড়াও হাটতে পারেনা, তা নিয়ে মিডিয়া কেন প্রতিবেদন করেনা ? কেন এর বিরুদ্ধে বলেনা। কোরবানী পশুর হাটের বিরুদ্ধে অপপ্রচারকারী তখন কেন মুখে কুলুপ এটে থাকে ? তখন কি মানুষের দুর্ভোগ আর রোগীর কষ্ট হয়না ? http://www.priyo.com/2014/04/12/64187.html

২. যুদ্ধাপরাদীদের বিচারের দাবিতে শাহবাগে অবস্থানের কারনে বারডেম, পিজি, ঢাকা মেডিকেলের রোগীরা টানা ৬ দিন ধরে অবরুদ্ধ ছিল। ব্যস্ত হাসপাতালগুলোর পাশে, সামনে অনবরত মাইক বাজানোর কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন রোগী ও তাদের স্বজনরা। নিদারুণ কষ্ট স্বীকার করতে হচ্ছে একুশের বইমেলায় যাতায়াতকারী মানুষকেও। বিড়ম্বনায় পড়ছেন হোটেল রূপসী বাংলার দেশি-বিদেশি অতিথিরা। [আমার দেশ পত্রিকা] তখন কিন্তু এই মিডিয়া এদের প্রচারে ব্যস্থ ছিল । তখন কি এই মিডিয়া প্রচার করেছে জনদুর্ভোগ আর রোগীর কষ্টের কথা ?

যখন তাদের এ সকল বিষয় আসে তখন তা হয় মানুষের স্বতঃস্পুর্ত অংশগ্রহন , দেশপ্রেম ।আর যখন মুসলমান উনাদের এক হওয়ার কোন বিষয় আসে তখন তা জনদুর্ভোগ !! অথর্ব সরকার আবার এই সকল মিডিয়ার অপ্রচারকে সমর্থন ও দেয় ! কোন দেশে বাস করছি ? একজন মুসলমান কি তার মুসলমানিত্ব প্রকাশ ও ইসলাম অনুসরন করতে পারবেনা ? সবাই প্রতিবাদে জেগে উঠুন । সবাই আওয়াজ তুলুন কোরবানীর পশুর হাট আগের থেকে আরো বাড়াতে হবে এবং পুর্বের হাট বাদ দেওয়া যাবেনা ।

সার্চ করুন

সর্বশেষ পোস্ট

এই সম্পর্কিত আরো পোস্ট সমূহ



১) সাবধান! গরুর গোশত খাওয়া নিয়ে ভীতি ছড়াচ্ছে ভারত নিয়ন্ত্রিত মিডিয়াগুলো

মুসলমানদের গরুর গোশত খাওয়ার প্রতি হিন্দুদের যারপরনাই বিদ্বেষ। গরু জবাই, গরুর গোশত রাখা ও খাওয়া এসবের প্রতি ভীতি ছড়ানো হিন্দুদের জাতিগত এজেন্ডা। এসব এজেন্ডা জোরপূর্বক

বিস্তারিত পড়ুন

২) পবিত্র কুরবানি নিয়ে কোন প্রকার ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবেনা

প্রতি বছর পবিত্র কুরবানির সময় শুরু হয় নানা ধরণের ষড়যন্ত্র। ইতিপূর্বে পবিত্র কুরবানির আগে গরুর মধ্যে ‘এ্যানথ্রাক্স’ ভাইরাসের নামে এক ধরণের ফোবিয়া (কুরবানির পশু ভীতি)

বিস্তারিত পড়ুন

৩) পবিত্র কুরবানি ‘ব্যবস্থাপনা’র নামে ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের চেষ্টা করলে দেশে গণবিস্ফোরণ ঘটতে পারে

বাংলাদেশে গরু জবাই নিয়ে বিশেষ করে পবিত্র কুরবানি ঈদের সময় ষড়যন্ত্র নতুন কোনো বিষয় না। ষড়যন্ত্র বিগত বছরগুলোতে পবিত্র কুরবানি নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি করতে কুচক্রী

বিস্তারিত পড়ুন

৪) যে পবিত্র কুরবানির উসীলায় চাঙ্গা হয়ে উঠে গোটা দেশের অর্থনিতি

এক কুরবানির ঈদের বরকতে চাঙ্গা হয়ে উঠে গোটা দেশের অর্থনিতি। হবে না কেন? এর সাথে জড়িত রয়েছে হাজার হাজার ব্যবসা আর হাজার হাজার টাকার লেনদেন।

বিস্তারিত পড়ুন