৬২) পবিত্র কুরআন শরীফ উনার আলোকে পবিত্র কুরবানী

৬২) পবিত্র কুরআন শরীফ উনার আলোকে পবিত্র কুরবানী

‘কুরবানী’ শব্দের অর্থ হচ্ছে- মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি মুবারক হাছিলের উদ্দেশ্যে মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র নাম মুবারকে নির্দিষ্ট তারিখে নির্দিষ্ট নিয়মে নির্দিষ্ট পশু যবেহ করা। অর্থাৎ পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার ১০, ১১, ১২ তারিখের মধ্যে উট, মহিষ, গরু, ছাগল, ভেড়া, দুম্বা এসব হালাল গৃহপালিত চতুষ্পদ পশুকে মহান আল্লাহ পাক উনার নাম মুবারকে উনারই সন্তুষ্টি মুবারক হাছিলের লক্ষ্যে যবেহ করা। পবিত্র কুরবানী উনার মূলে ‘উদ্বহিয়্যাহ’ শব্দ মুবারক এসেছে। যার অর্থ হচ্ছে- মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি মুবারক লাভের উদ্দেশ্যে যবেহকৃত পশু।

পবিত্র কুরবানী সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি ‘পবিত্র সূরা হজ্জ শরীফ’ উনার ২৮নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন-
وَيَذْكُرُوا اسْمَ اللَّهِ فِي أَيَّامٍ مَّعْلُومَاتٍ عَلَى مَا رَزَقَهُم مِّن بَهِيمَةِ الْأَنْعَامِ فَكُلُوا مِنْهَا وَأَطْعِمُوا الْبَائِسَ الْفَقِيرَ
অর্থ:- “এবং তারা যেন স্মরণ করে কতক নির্দিষ্ট দিনে মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র নাম মুবারক গৃহপালিত চতুস্পদ পশুর উপরে (অর্থাৎ কুরবানী করে সে সকল পশু) যা মহান আল্লাহ পাক তাঁদেরকে রিযিক হিসেবে দিয়েছেন।” আর তা থেকে তোমরা খাও এবং গরীব মিসকিনদেরকে খাওয়াও।

মহান আল্লাহ পাক তিনি ‘পবিত্র সূরা হজ্জ শরীফ’ উনার ৩৬নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন-
وَالْبُدْنَ جَعَلْنَاهَا لَكُم مِّن شَعَائِرِ اللَّهِ لَكُمْ فِيهَا خَيْرٌ فَاذْكُرُوا اسْمَ اللَّهِ عَلَيْهَا صَوَافَّ فَإِذَا وَجَبَتْ جُنُوبُهَا فَكُلُوا مِنْهَا وَأَطْعِمُوا الْقَانِعَ وَالْمُعْتَرَّ كَذَلِكَ سَخَّرْنَاهَا لَكُمْ لَعَلَّكُمْ تَشْكُرُونَ
অর্থ:- “পবিত্র কুরবানী উনার উটসমূহ অর্থাৎ পশুসমূহকে আমি মহান আল্লাহ পাক উনার শিয়া’র বা নিদর্শনসমূহের অন্তর্ভুক্ত করেছি। আর এর মধ্যে রয়েছে তোমাদের জন্য অফুরন্ত কল্যাণ। সুতরাং তোমরা উনাদের উপর মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র নাম মুবারক স্মরণ করো দাঁড় করিয়ে। অতঃপর উটগুলো যখন কাত হয়ে (যমীনে) পড়বে তখন তোমরা উহার কিছু অংশ খাবে এবং অযাঞ্চাকারী, যাঞ্চাকারী সকল অভাবীকেও খাওয়াবে। এরূপে আমি উহাদিগকে অর্থাৎ পশুগুলোকে তোমাদের আওতাধীন করে দিয়েছি। যাতে তোমরা শুকরিয়া করতে পারো।”

মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরবানী সম্পর্কে ‘পবিত্র সূরা আল কাওছার শরীফ’ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন-
“ إِنَّا أَعْطَيْنَاكَ الْكَوْثَرَ فَصَلِّ لِرَبِّكَ وَانْحَرْ
অর্থাৎ- “নিশ্চয়ই আমি আপনাকে ‘কাওছার’ হাদিয়া করেছি। অতএব, আপনার মহান রব উনার সন্তুষ্টি মুবারক লাভের উদ্দেশ্যে পবিত্র নামায আদায় করুন এবং পবিত্র কুরবানী করুন।”

মহান আল্লাহ পাক তিনি ‘পবিত্র সূরা হজ্জ শরীফ’ উনার ৩৪নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন-
وَلِكُلِّ أُمَّةٍ جَعَلْنَا مَنسَكًا لِيَذْكُرُوا اسْمَ اللَّهِ عَلَى مَا رَزَقَهُم مِّن بَهِيمَةِ الْأَنْعَامِ
অর্থ:- “আমি প্রত্যেক উম্মতের জন্যই পবিত্র কুরবানী উনার বিধান দিয়েছিলাম। যাতে তাঁরা মহান আল্লাহ পাক উনার নাম মুবারক স্মরণ করে গৃহপালিত চতুস্পদ পশুর উপরে অর্থাৎ পবিত্র কুরবানী করে।”

মহান আল্লাহ পাক তিনি প্রথমোক্ত দুইখানা পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মাধ্যমে পবিত্র মুক্কা শরীফ-এ উপস্থিত হাজী ছাহেবদের পবিত্র কুরবানী করার বিষয়টি উল্লেখ করেছেন। আর শেষক্তো দুইখানা পবিত্র আয়াত শরীফ উনাদের মাধ্যমে প্রত্যেক সামর্থবান মুসলমানকে তাদের স্ব-স্ব স্থানে পবিত্র কুরবানী করার নির্দেশ মুবারক দিয়েছেন। উপরুন্ত এটা জানিয়ে দেয়া হয়েছে যে, পবিত্র কুরবানী উনার বিধান শুধু আমাদের জন্যই নয় বরং পূর্ববর্তী উম্মতদের জন্যও ছিলো।

সার্চ করুন

সর্বশেষ পোস্ট

এই সম্পর্কিত আরো পোস্ট সমূহ



১) সাবধান! গরুর গোশত খাওয়া নিয়ে ভীতি ছড়াচ্ছে ভারত নিয়ন্ত্রিত মিডিয়াগুলো

মুসলমানদের গরুর গোশত খাওয়ার প্রতি হিন্দুদের যারপরনাই বিদ্বেষ। গরু জবাই, গরুর গোশত রাখা ও খাওয়া এসবের প্রতি ভীতি ছড়ানো হিন্দুদের জাতিগত এজেন্ডা। এসব এজেন্ডা জোরপূর্বক

বিস্তারিত পড়ুন

২) পবিত্র কুরবানি নিয়ে কোন প্রকার ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবেনা

প্রতি বছর পবিত্র কুরবানির সময় শুরু হয় নানা ধরণের ষড়যন্ত্র। ইতিপূর্বে পবিত্র কুরবানির আগে গরুর মধ্যে ‘এ্যানথ্রাক্স’ ভাইরাসের নামে এক ধরণের ফোবিয়া (কুরবানির পশু ভীতি)

বিস্তারিত পড়ুন

৩) পবিত্র কুরবানি ‘ব্যবস্থাপনা’র নামে ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের চেষ্টা করলে দেশে গণবিস্ফোরণ ঘটতে পারে

বাংলাদেশে গরু জবাই নিয়ে বিশেষ করে পবিত্র কুরবানি ঈদের সময় ষড়যন্ত্র নতুন কোনো বিষয় না। ষড়যন্ত্র বিগত বছরগুলোতে পবিত্র কুরবানি নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি করতে কুচক্রী

বিস্তারিত পড়ুন

৪) যে পবিত্র কুরবানির উসীলায় চাঙ্গা হয়ে উঠে গোটা দেশের অর্থনিতি

এক কুরবানির ঈদের বরকতে চাঙ্গা হয়ে উঠে গোটা দেশের অর্থনিতি। হবে না কেন? এর সাথে জড়িত রয়েছে হাজার হাজার ব্যবসা আর হাজার হাজার টাকার লেনদেন।

বিস্তারিত পড়ুন