পবিত্র কুরবানি নিয়ে ষড়যন্ত্র। সরকারের ভেতর থাকা ইসলামবিদ্বেষী মহলগুলো কি সরকারকে বিপাকে ফেলে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায়?

পবিত্র কুরবানি নিয়ে ষড়যন্ত্র। সরকারের ভেতর থাকা ইসলামবিদ্বেষী মহলগুলো কি সরকারকে বিপাকে ফেলে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায়?

সম্প্রতি দেশে কিছু ইসলামবিদ্বেষী মহল ইসলামবিরোধী অপতৎপরতা জোড়ালোভাবেই চালিয়ে যাচ্ছে। যা দেশের ৯৮ ভাগ মুসলমান জনগোষ্ঠীকে উত্তেজিত করে দেয়ার জন্য ও সরকারবিরোধী বিক্ষোভ সৃষ্টির করার জন্য যথেষ্ট। রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের দেশে পরিবেশ দূষণ ও যানজটের মিথ্যা অজুহাত দেখিয়ে পবিত্র কুরবানির পশু জবাই ও পশুর হাট স্থানান্তর নিয়ে ষড়যন্ত্রের বিষয়টি।

রাজধানিতে যানজট নিত্যদিনের চিত্র, নানা কারণে পরিবেশ দূষণও প্রতিদিনই হচ্ছে। তথাপি মুসলমানদের কুরবানির পশু জবাইয়ের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার নামে বিশৃঙ্খলা ও হাজারো সমস্যা সৃষ্টি করে ‘কুরবানি সমস্যা’ সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে খোদ সরকারের ভেতর থেকেই। এছাড়া যানজটের অজুহাতে পবিত্র কুরবানির পশুর হাট স্থানান্তর করার ষড়যন্ত্র করছে যেন, মুসলমানগণ দূর-দুরান্ত থেকে পশু কিনে আনতে সমস্যায় পড়েন এবং পশু সঙ্কটে পড়ে উচ্চমূল্যে পশু কিনতে হয়। নাউযুবিল্লাহ! এসব ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করলে সরকার শুধু জনগণের রোষাণলেই পড়বে না; বরং বৃহজ্জ জনগোষ্ঠী উত্তেজিত হয়ে বিক্ষোভে নামলে সরকার চরম বেকায়দায় পড়বে এবং সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো সুযোগ বুঝে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সরকার পতনের ডাক দিবে। সংখ্যাগরিষ্ঠ বিক্ষুদ্ধ মুসলমানদের সমর্থনে তারা সফলতাও অর্জন করতে পারে।
সুতরাং অবশ্যই সরকারের দায়িত্ব ও কর্তব্য হবে মুসলমানদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোর প্রতি খেয়াল রাখতে হবে।

এই সম্পর্কিত আরো পোস্ট সমূহ



হযরত হাবীল আলাইহিস সালাম উনার ও কাবীলের কুরবানী

পৃথিবীর প্রথম কুরবানী সংঘটিত হয় হযরত আবুল বাশার ছফিউল্লাহ আলাইহিস সালাম উনার যমীনে অবস্থানকালীন সময় থেকেই। হযরত আবুল বাশার ছফিউল্লাহ আলাইহিস সালাম ও উম্মুল বাশার

বিস্তারিত পড়ুন

হযরত ইসমাঈল আলাইহিস সালাম তিনিই যবীহুল্লাহ

‘তাফসীরে মাযহারী’ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে, “এ কথা সুনিশ্চিত যে, ‘পবিত্র সূরা ছফফাত শরীফ’ উনার ১০১নং আয়াত শরীফ উনার মধ্যে উদ্ধৃতغلام حليم অর্থাৎ ‘ধৈর্যশীল পুত্র’

বিস্তারিত পড়ুন